ঘরেই বেল্টের কারখানা


কোমর বন্ধনী বা বেল্ট ছাড়া অনেকেরই সাজ সম্পূর্ণ হয় না। সারা বছরই এর সমান চাহিদা, তাই বিক্রিও ভালো। বেল্ট তৈরির একটি কারখানা করতে বেশি পুঁজির প্রয়োজন হয় না। বাসায় খালি ঘর থাকলেই বেল্ট তৈরির ছোট কারখানা করা যায়।বিস্তারিত জানাচ্ছেন সিদ্ধার্থ সাই

প্রথম দিকে একাই শুরু করতে পারেন। জিনজিরা, চকবাজার, ইসলামবাগ, যাত্রাবাড়ী, বিবির বাগিচা, সায়েদাবাদ, রায়েরবাজারসহ ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় আছে বেল্টের ছোট-বড় কারখানা। ব্যবসা শুরুর আগে বেচা-বিক্রি আর কাঁচামাল সংগ্রহের খোঁজখবর এসব কারখানা থেকেই নিতে পারেন।

কী কী লাগবে

কমপক্ষে আট ফুট বাই আট ফুটের একটি ঘর লাগবে। এ ছাড়া লাগবে চামড়া অথবা রেক্সিন। আঠা, সেলাই মেশিন, বোর্ড কাগজ, ডাইস মেশিন ইত্যাদি।

বেল্ট যেভাবে বানানো হয়

বেল্ট হয় তিন রকমের_শুধু চামড়ার, চামড়া ও রেক্সিনের ও শুধুই রেক্সিনের। চামড়ার বেল্টগুলো চামড়া কেটে সাইজ করে তার এক মাথায় বকলেস লাগালেই হয়ে গেল। কখনো কখনো ডাইস মেশিনের ছাপ দিয়ে নকশা করা হয়। চামড়া-রেক্সিনের তৈরি বেল্টগুলোর ওপর দিকে থাকে চমড়া আর নিচের অংশে রেক্সিন। দুই পাশ সেলাই দিয়ে বকলেস লাগালেই প্রস্তুত হয়ে যায়। আর রেক্সিনের বেল্টগুলোর কাজ হয় কয়েক স্তরে। বেল্টের মাপমতো কাগজ কেটে তার দুই পাশে রেক্সিন দিয়ে মুড়িয়ে আঠা লাগাতে হয়। তারপর সেলাই করতে হয়। সবশেষে বকলেস লাগিয়ে দিতে হয়। তবে কম্পানির নাম খোদাই করতে চাইলে ডাইসের ব্লকে রেখে ছাপ দিতে হবে।

কাঁচামাল ও যন্ত্রপাতি

সেলাই মেশিন কেনা যাবে আট হাজার টাকার মধ্যে। আর ডাইস মেশিন কিনতে খরচ পড়বে ১০ হাজার টাকা। আর প্রতিবার ডাইস বানাতে খরচ হবে এক থেকে তিন হাজার টাকা। এক গজ চার গিরা করে একেকটা চামড়া কেনা যাবে এক হাজার ৫০০ থেকে এক হাজার ৮০০ টাকার মধ্যে। একই মাপের রেক্সিন ৭০০ টাকা। বুক্কা বা কাগজের বোর্ড ৩০০ টাকা, তিন স্তরে বানানো বেল্টের নিচের অংশের চামড়ার দাম পড়বে ৫০০ টাকার মতো। আঠা দুই কেজির বোতলের দাম ৭০০ টাকা।

কোথায় কোন কাঁচামাল পাওয়া যায়

সব রকমের কাঁচামাল পাওয়া যাবে সিদ্দিকবাজার, নবাবপুর, চকবাজার, বংশাল বা রায়েরবাজারে। মেশিন কেনার জন্য যেতে হবে ঢাকার বংশাল অথবা ধোলাইখালে।

কাজ ও আয়

একজন লোক দৈনিক ৫০টি বেল্ট বানাতে পারে। পাইকারিভাবে প্রতিটি চামড়ার বেল্ট ১২০ থেকে ২০০ টাকায় বিক্রি হয়, রেক্সিন-চামড়ার বেল্ট বিক্রি হয় ৮০ থেকে ১০০ টাকায়। আর শুধুই রেক্সিনের বেল্ট বিক্রি করা যায় ৬০ থেকে ৭০ টাকায়। আর প্রতিটি বেল্টেই ৩০ থেকে ৪০ টাকা লাভ থাকে।

প্রশিক্ষণ নেবেন যেখানে

সরকারিভাবে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন তিন মাসের একটি কোর্স করায়। চাইলে এখানে যোগাযোগ করে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন।

লিখেছেন- Maz Ahmed Mizan

0