বাংলার এফ-কমার্স আকাশে তখন দুর্যোগের ঘনঘটা


দেশে এখন ১০ হাজারের বেশি এফ-কমার্স সাইট আছে। এদের অনেকেই মেয়ে। মেয়ে বলেই তাদের ব্যাপারে ব্যাংক-বীমা-মিডিয়ার আগ্রহ কম। তাছাড়া বড় অংশ অতিক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। অনেকেই বাসায় থেকে এ কাজ করেন। আমাদের দেশে চট করে ইকো সিস্টেম দাড়ায় না। ফলে নানা রকম ঝামেলা থাকেই। যেমন – ফেসবুক পেজের মাধ্যমে যে জামাটা বিক্রি হলো সেটির টাকা কেমনে যোগাড় হবে, ডেলিভারি কে দেবে? কুরিয়ার সার্ভিসে দিতে হলে, কুরিয়ার সার্ভিসের অফিসে যেতে হবে। বাসায় হয়তো ছোট্ট বাচ্চাটি একা থাকবে। আবার কেমন করে হিসাব নিকাশ করতে হয়, কেমন করে লাভের হিসাব করতে হয় সেটাও তারা জানে না। ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট কার্ড নাই যে ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেবে। মোদ্দা কথা বাংলার এফ-কমার্স আকাশে তখন দুর্যোগের ঘনঘটা। কে দেবে তাদের ভরসা? কে শোনাবে তাদের সহায়তার গান?

ঠিক সে সময় চাকরি ছেড়ে দিয়ে সিফাত সারোয়ার তার দুই সঙ্গী আতা আর আকিফকে নিয়ে প্রতিষ্ঠা করলো ShopUp, গুন গুন করে গান গায় – উদ্যোগ উদ্যোগের জন্য, উদ্যোক্তা উদ্যোক্তার জন্য, একটু সহায়তা কী এফ-কমার্স পেতে পারে না?

হ্যা, সিফাতদের শপআপ ঠিক এই কাজটাই করতে শুরু করে। প্রথমে এফকমার্সের ইনভেন্টরি, হিসাব নিকাশের একটি সফটওয়্যার, একটি বিনামূল্যের প্ল্যাটফর্ম, বিকাশে ফেসবুকে বুস্ট করার ব্যবস্থা হয়ে এখন ব্র্যাক ব্যাংকের সহায়তায় ই-লোনের ব্যবস্থা। শপআপের কারণে অনেক অনেক এফ-কমার্সের দিগন্ত বড় হয়েছে, ব্যবসা পরিচালনা সহজ হয়েছে। ডেলিভারি থেকে বুস্ট, হিসাব থেকে প্রশিক্ষণ- সবটাতেই পাওয়া যায় শপআপের ছোঁয়া। আগামী ১৬-১৭ তারিখে শপআপ আয়োজন করেছে ই-লোন মেলার।

রোববার গিয়েছিলাম কলাবাগানে শপআপের অফিসে। একটি বড় বাড়ির দুইটি ফ্লোরজুড়ে শপআপের অফিস। কাজ করে ১০১ জন কর্মী! ৬ তলায় আমাকে হেটে উঠতে হল, কারণ লিফটের ঝামেলা। বুদ্ধি করে কয়েক সিড়ি পরপর থেমে থেমে উঠেছি। বুড়ো হলে যা হয় আরকি। সিফাত, আতাউর, আফসানার কাছে জেনেছি তাদের চড়াই-উৎরাই। ই-কমার্সের বিকাশের আগে কমার্সের স্থিতাবস্থার কথা ভাবছে সিফাত। কমার্সই যদি না হয় তাহলে কেমনে ই, এফ হবে?

সেজন্য ভাবছে দেশের ম্যানুফ্যাকচারিং লাইনে কাজ করা যায় কিনা। এতো বড় বাজার, সেটি কেন শুধু বিদেশীদের থাকবে। আমাদের লোকোরা কেন আমাদের জামাকাপড়, আমাদের পণ্য কিনবে না? এসব নিয়েই সিফাত, শপআপের পথ চলা।

উদ্যোক্তা সপ্তাহে শপআপ ও তার ১০১ কর্মীর জন্য নিরন্তর শুভ কামনা।

উদ্যোক্তাদের জন্য উদ্যোগের জয় হোক।

হ্যাপি উদ্যোক্তা সপ্তাহ।

0