ব্যবসায়-হাতিতত্ত্ব


অফিস থেকে বাসায় যাব । রিক্সার জন্য অপেক্ষা করছি । কোন রিক্সাই আমার গন্তব্যে যেতে রাজি নয় । সবার জন্যই নাকি আমার গন্তব্য উল্টাদিকে হয় । কিছু বিরক্ত হয়েই দাড়িয়ে আছি আর কাঙ্খিত রিক্সার জন্য এদিক ওদিক তাকাচ্ছি । হঠাৎ দেখি একজন আমার দিকে এগিয়ে আসছে । আমি কিছু অবাক এবং বিব্রত বোধ করছি এরই মধ্যে সে আমার কাছে এসে বললো-

– কিছু মনে করবেন না ? আপনার নাম কি আমিনুল ? আপনি কি বাঙলা কলেজে পড়তেন ?
– জ্বি আমার নাম আমিনুল ইসলাম, আমি বাঙলা কলেঝে পড়তাম ।
– ঠিক চিনেছি ? তুই আমারে চিনতে পারলি না ? আমার নাম সাগর, মুড়ি সাগর ।
– আরে তুই, ( সাগর সব সময় আমাদেরকে ঝাল মুড়ি খাওয়াতো এবং আমাদের ব্যাচে আরেকজন সাগড় ছিল তাই চেনার  সুবিধার জন্য আমরা ওকে মুড়ি সাগর বলে ডাকতাম ) কেমন আছিস ? কোথায় আছিস, কি করছিস ? দুজনে মিলে অনেক দিন পড় অনেক কথা হলো । সে এখন ব্যবসা করে এবং ভালই ব্যবসা চলছে । তার সাথে কথা বলে নতুন একটা বিষয় শিখলাম । সেটা হলো ব্যবসার পণ্য বিক্রির জন্য আমরা যে, যতো ভাবেই কাজ করি না কেন যদি না আমরা সেই পন্য বিক্রির সাথে হাতিতত্ত্ব সংযুক্ত করতে পারি তাহলে । পণ্য বিক্রি এবং টিকে থাকা সত্যি কঠিন হয়ে যায় ।

হাতি তত্ত্ব :

ধরুন আপনি এমন একটি রাস্তার পাশের ফুটপাত দিয়ে হেটে যাচ্ছেন, যে রাস্তা দিয়ে বড় বড় গাড়ী, বাস , ট্রাক ইত্যাদি চলাচল করে । কিন্তু একটু খেয়াল করে দেখুন তো সেই সব বড় বড় গাড়ী, বাস, ট্রাক ইত্যাদি আপনার দৃষ্টি আকর্ষন করে কিনা অথবা সেই সব বাস, ট্রাক, গাড়ী ইত্যাদি দেখবার জন্য আপনি কখনও আপনার হাটা থামিয়েছেন কিনা ? আমি নিশ্চিত বেশির ভাগ উত্তরই হবে ” না “। কারন এই রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত বড় বড় বাস, ট্রাক, গাড়ী ইত্যাদি চলাচল করে এবং এগুলো চলাচল করবার জন্যই এ রাস্তা বানানো হয়েছে । এটি কাঙ্খিত একটি বিষয় , এর মধ্যে এমন কোন নতুনত্ব নেই যা আমার বা আমাদের দৃষ্টি আকর্ষন করতে পারে । কিন্তু যদি সেই একই রাস্তা দিয়ে একটি হাতি হেটে যেতে দেখেন তাহলে কি হবে । তাহলে নিশ্চিত করে বলা যায় যে, সেই হাতিটি আপনার দৃষ্টি আকর্ষন করবে এবং আপনি খানিক সময়ের জন্য হলেও দাড়াবেন এবং দেখবেন যে হচ্ছেটা কি , করছে কি হাতি টা । এরমধ্যে কয়েকটি কারন হলো :

– এটি একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা । যে কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা মানুষের দৃষ্টি আকর্ষন করে সহজে এবং সেটি মনেও থাকে অন্য যে কোন সাধারন ঘটনার চাইতে বেশি ।
– হাতির আকার । এটির আকার এতটাই বড় যে, আপনার চোখের সামনে দিয়ে যদি কোন হাতি হেটে যায় তা কোন না কোনভাবে আপনার দৃষ্টির মধ্যে আসবেই
– চাইলেই হাতির দেখা পাওয়া যায় না । তাই আপনি যদি প্রথমবার হাতি দেখেন তাহলে অনেকক্ষন ধরে আর আগে দেখে থাকলেও কিছুক্ষণ এর জন্য আপনি হাতি-টি দেখবেন কারন চাইলেই আপনি প্রতিদিন হাতি দেখতে পারবেন না । এরপর হাতি দেখতে চাইলে কমপক্ষে আপনাকে ঢাকা চিরিয়াখানায় যেতে হতে পারে ।
– কি করছে হাতিটা । যখন আপনি কিছুটা সময়ের জন্য হাতিটার দিকে তাকাবেন মানে হাতিটা আপনার দৃষ্টি আকর্ষন করবে তখন আপনি দেখতে চাইবেন আসলে হাতিটা করছেটা কি?

ঠিক এই বিষয়গুলোই যদি আমরা আমাদের ব্যবসার মধ্যে পণ্য বিক্রয়ের সাথে, মার্কেটিং এর সাথে মিলিয়ে কাজ করতে পারি তাহলে স্বাভাবিকভাবেই আমাদের পন্য বিক্রির হার(%) বৃদ্ধি পাবে ।

– একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনার মধ্যে দিয়ে আপনার পণ্যের প্রচার শুরু করতে হবে । যা আপনার ভোক্তা/ক্রেতারা কখনই চিন্তা করেননি । ধরা যাক আমরা একটি মিষ্টির দোকান দিব । এখন এই মিষ্টির দোকন এর খবর বা উদ্বোধন এর জন্য আমরা কিভাবে প্রচার চালাতে পারি । আমরা অনলাইন, অফলাইন এ বিগ্গাপন দিতে পারি, আমরা পোষ্টার, লাগাতে পারি, আমরা লিখলেট বিতরন করতে পারি, আমরা দোকান উদ্বোধনের জন্য এক জমকালো অনুষ্ঠান করতে পারি ইত্যাদি ইত্যাদি । কিন্তু একটু ভেবে দেখুন তো এগুলোর কোনটি কি অনাকাঙ্খিক কোন ঘটনা । নিশ্চয় নয় । কিন্তু আপনি যদি এমন একটি কাজ করেন যে, আপনার দোকানের ৫ কি:মি জুরে যত বাড়ী, অফিস, প্রতিষ্ঠান রয়েছে তাদের সবাইকে দুটি করে মিষ্টি পাঠালেন এবং সাথে দোয়া চেয়ে এবং মিষ্টি যদি ভাল লাগে তাহলে দোকান এ যাবার জন্য আহ্বান জানালেন তাহলে কি হবে ।

যে লোকটি ব্যাংকে বসে কাজ করছিল, যে গৃহিনী বাসায় বসে রান্না করছিল অথবা যে শিক্ষক ক্লাস এ পড়াতে পড়াতে ক্লান্ত হয়ে গিয়েছিল সে কি কখনও ভেবেছিল বা তার কাছে কি এটা কোন কাঙ্খিত ঘটনা ছিল যে, কোথায় কোন মিষ্টির দোকান উদ্বোধন করা হলো আর সেই উদ্বোধন উপলক্ষে আপনি ভালবেসে তাকে মিষ্টি পাঠাবেন । নিশ্চয় না । এটা তার কাছে তাদের কাছে কখনও কাঙ্খিত ঘটনা নয় ফলে এরপর কখনও মিষ্টি কেনার দরকার হলে প্রথমেই যার কথা, যে দোকানের কথা মনে হবে আপনি নিশ্চিত থাকতে পারেন সেই নামটি হবে আপনার এবং আপনার দোকানের ।

হাতির আকার । এবার আসা যাক হাতির আকার এর কথায় আপনি ভেবে দেখুন তো আপনার কার্যক্রমটি যদি এটি ৫ কি:মি জুরে করা সম্ভব হয় তাহলে । এটি নিয়ে কত আলোচনা হবে । কতো সমালোচনা হবে । কত প্রচার লাভ করবে । অর্থাৎ আপনার শুরুটাও কিন্তু হাতির আকার এর মতোই, যার কারনে এটি সকলের দৃষ্টি আকর্ষন করতে সমর্থ হবে বলে আমার বিশ্বাস ।

চাইলেই হাতির দেখা পাওয়া যায় না । আপনি যে ৫ কি:মি জুরে সকল বাড়ী, প্রতিষ্ঠানকে মিষ্টি দিলেন এই রকম ঘটনা কিন্তু প্রতিদিন ঘটেনা ফলে যারা যারা এই কার্যক্রমের অংশ হতে পেড়েছে অথাৎ মিষ্টি পেয়েছে তারা চাইলেও এটিকে সহজে ভুলে যেতে পারবে না । আবার এটি একটি ব্যায় বহুল কাজ তাই চাইলেই অন্য কোন মিষ্টির দোকান এটি করতে পারবে না । ফলে আপনার এই কাজের স্বাক্ষী হয়ে সেই সব লোক অনেক দিন আপনার জন্য স্বাক্ষী দিবে ।

কি করছে হাতিটা । আপনি কিন্তু আপনার ৫ কি:মি এর কার্যক্রমের মধ্যে দিয়ে সকলের দৃষ্টি আকর্ষন করতে পেরেছেন এখন আপনার মুল কাজ বাকী সেটি হলো আপনার পণ্য দিয়ে ক্রেতা/ভোক্তার মন জয় করা । অর্থাৎ যারা যারা আপনার দিকে তাকিয়ে আছে তাদেরকে আপনার গুনগত মানের মিষ্টি খাইয়ে তাদের হৃদয় জয় করতে হবে । এ কাজে আপনি যদি ব্যার্থ হন তাহলে আপনি যতো তারাতারি এতগুলো লোকের দৃষ্টি আকর্ষন করেছিলেন ঠিক তত তারাতারিই আপনার দিক থেকে তারা তাদের দৃষ্টি ফিরিয়ে নিবে । আপনি চাইলেও সহজে আর তাদের দৃষ্টি আকর্ষন করতে পারবেন না পণ্য বিক্রি তো পরের কথা । তাই এ রকম একটি কাজ শুরু হবার আগে অবশ্যই আপনাকে আপনার পণ্য এবং ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে কঠোর প্রস্তুতি নিতে হবে । যাতে করে একবারে ৫ কি:মি এরসকল ক্রেতা/ভোক্তা চলে এলেও আপনি সামলে উঠতে পারেন এবং আপনার পণ্য ও সেবা দিয়ে তাদের হৃদয়ে স্থায়ীভাবে জায়গা করে নিতে পারেন ।

আমিনুল ইসলাম: সিইও, শাহীন’স হেল্প লাইন।

0