শৈলীতে ছাড় ও পুঁজোর মিট আপ…


নানা ধরনের বাহারি ও শৈল্পিক জিনিসপত্র, গহনা, শাড়ি থেকে শুরু করে আচার পর্যন্ত পাওয়া  যায় শৈলীতে। তাহমিনা শৈলীর নিজস্ব তত্ত্বাবধানে এই ফ্যাশন হাউজে পাওয়া যায় নানা ধরনের রুচিশীল পন্য।

তাহমিনা শৈলী ছোটবেলা থেকেই সৃজনশীল ধ্যান-ধারনা নিয়ে বেড়ে ওঠেন। ক্র্যাফটিং এর হাতেখড়ি হয় ছোট থাকতেই। নিজের শখের জিনিস নিজেই তৈরি করা শুরু করেন।

ধীরে ধীরে তার তৈরি ভিন্ন-মাত্রিক ও সৃজনশীল অঙ্গসজ্জার জিনিস মানুষ পছন্দ করতে শুরু করে। আশে-পাশের পরিচিত মানুষের অনুরোধেই শুরু করেন নিজের গয়নার পাশাপাশি অন্যের জন্য  বানানো। একটু-আধটু করে নিজের হাতে  বানিয়ে বিক্রি  করা শুরু করেন তিনি। এরপর শুরু হয় তার সামনের দিকে পথচলা। গহনার পাশাপাশি হরেক রকমের হ্যান্ডিক্রাফট,পোষাক , গৃহস্থালী বাহারি পন্য নিয়ে দিন দিন সমৃদ্ধ হচ্ছে শৈলী।

এই পুজোর আগে তারা একটা বিশাল ছাড়ের মাধ্যমে তাদের ক্রেতাদের সাথে একটা গেট টুগেদাদের মত আয়োজন করতে চাচ্ছে। আগামী ১৩ ও ১৪ সেপ্টেম্বর শৈলীর লালমাটিয়া  স্টুডিও বসবে বিশাল ছাড়ের মেলা। নানা ধরনের বাহারি জুয়েলারী থেকে শুরু করে সাজ-পোষাক,শাড়ি, আচার,জামা ইত্যাদী পন্যের উপর থাকছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়। এই দুইদিন বিকাল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ছাড় চলবে। এই দুইদিন ফেসবুক লাইভেরও আয়োজন করা হয়েছে। বেলা ৪টা থেকে ৫টা পর্যন্ত করা হবে ফেসবুক লাইভ। সেখানে নানা ধরনের ছাড়ের পন্যসমূহ দেখানো হবে। এরপর বিকাল ৫টা থেকে ৬টা অব্দি রাখা হয়েছে হালকা চায়ের আড্ডা দেবার সুযোগ।

গত ২ বছরের মধ্যেই এটাই সবচেয়ে বড় ছাড়ের আয়োজন করছে ফ্যাশন হাউজ শৈলী। আর এই শোরুমে এটাই প্রথমবারের জন্য আয়োজন। তাই থাকছে নানা বারতি আকর্ষনও।

শৈলীর বন্ধুরা,ক্রেতারা এই আয়োজনে যোগ দিতে পারবে। কিনে নিতে পারবে মনের মত জিনিস। এছাড়া যারা সরাসরি ওই দুইদিন আসতে পারবে না তাদের জন্য রয়েছে ফেসবুক লাইভে, ফেসবুক পেইজে, মেইলে ও ইন্সট্রাগ্রামে পন্য অর্ডার করার সুযোগ।

এছাড়া এই দুইদিন ফেসবুক লাইভ চলাকালীন সম যারা  বেশি বার এই লাইভ শেয়ার করবে এদের মধ্য থেকে সেরা ৩ জন পাবেন বিশেষ পুজোর পুরষ্কার।

 

 

ঠিকানা- শৈলী ক্রিয়েটিভ স্টুডিও, বাড়ি- ২/১৭, ব্লক- বি, লালমাটিয়া, ঢাকা।

যোগাযোগ – ০১৯৯৫৭৯৫৮৭৪ ।

0