উদ্যোগ সংক্রান্ত কিছু কমণ জিজ্ঞাসা


১ । ট্রেড লাইসেন্সের ক্ষেত্রে অঞ্চল নির্বাচনের মাপকাঠি আসলে কি ? আমি যে এলাকায় ব্যবসা করব সেই এলাকার কর্পোরেশন থেকে ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে নাকি যে এলাকায় আমার অফিস থাকবে সেই এলাকা থেকে নিতে হবে ?যেমন আমি থাকি উত্তরা কিন্তু আমার ব্যবসা হবে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রিক কিন্তু অফিস থাকবে উত্তরাতেই সে ক্ষেত্রে কি হতে পারে … ?আবার আমার জন্যে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন থেকে ট্রেডলাইসেন্স সংগ্রহ করার চাইতে নারায়গঞ্জ থেকে সংগ্রহ করা অনেক সহজ । আমি যদি কাগজে কলমে সব কিছু নারায়নগঞ্জ দেখিয়ে ট্রেড লাইসেন্স নেই আর ব্যবসা উত্তরা থেকে পরিচালনা করতে চাই তাহলে কি পারব ? আমার ব্যবসাটি হল অনলাইন কেন্দ্রিক ।অনলাইন কেন্দিক ব্যবসা কিন্তু আবার সারা দেশ ব্যাপি হতে পারে, যেমন আমার জেলা প্রতিনিধি থাকতে পারে, এমন ক্ষেত্রে ট্রেড লাইসেন্সের ধরন কি হতে পারে ? আবার আমি যদি আইটি বেইস ট্রেনিং সেন্টার করতে চাই তাহলে কি হবে ? যদি আমি একটি প্রতিষ্টানের আন্ডারে অনেকগুলো কার্যক্রম চালাতে চাই তাহলে কি আলাদা আলাদা ট্রেড লাইসেন্স লাগবে নাকি একটিতেই হবে ? যেমন মনে করেন – ওয়েবসাইট ডেভেলপ, সফটওয়্যার ডেভেলপ, অনলাইন মার্কেটিং, ই – কমার্স, ট্রেনিং সেন্টার, ব্লগ পরিচালনা ।

উত্তরঃ আপনি ট্রেড লাইসেন্স যেখানে আপনার বিজনেস রান করবে সেখান থেকে নেয়াই উত্তম। সেই ক্ষেত্রে আপনার নারায়ণ গঞ্জ থেকে নেয়াই শ্রেয়। উত্তরা অফিস টা আপনাকে অপারেশন চালাচ্ছেন আর মুল বিজনেস করছেন নারায়ণগঞ্জে তাই আমার মতে নারায়ণগঞ্জ আপনার জন্যে বেস্ট প্লেস। সেই ক্ষেত্রে উত্তরা কোন বাধা হবে না।

জেলা প্রতিনিধির ব্যাপার থাকলে আর ব্যবসা যদি হয় অনলাইন কেন্দ্রিক তাহলে ডিস্ট্রিবিউশন বা ডিলারশীপ ক্যাটাগরি বেস্ট সুইটেবল আর ট্রেড লাইসেন্স এর বেলায় আই টি সার্ভিসেস বা আই টি এনাবল্ড সার্ভিস ক্যাটাগরি দিলে আপনি যা যা করতে চাচ্ছেন আই টি সংক্রান্ত সব কিছুই করতে পারবেন (ট্রেনিং, ওয়েব ফার্ম ইত্যাদি)

আমার ২য় জানার বিষয়টি হল আইনি দিক সম্পর্কে –

আমি আমার প্রতিষ্ঠানের জন্যে নিয়োগ দিতে চাইলে সেই ক্ষেত্রে কি পুর্বেই সমস্ত কাগজ পত্র কমপ্লিট থাকতে হবে নাকি কাগজপত্র ফাইনাল হতে হতে আমি নিয়োগ দেয়াও ফাইনাল করতে পারব ? অনেক প্রতিষ্ঠানই যাদেরকে নিয়োগ দেয় তাদের কাছ থেকে জামানত হিসেবে কিছু অগ্রিম টাকা নেয়, এর আইনি দিকটা কি ? কর্মীদের কাছ থেকে জামানত বাবদ নেয়া টাকা কি কেউ তার ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে পারবে ? এর আইনি দিকটা কি ? আমি একটি একক মালিকানাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলতে চাই, কিন্তু ব্যাক্তিগত ভাবে আমি অনেকের কাছ থেকেই টাকা নিব যাদের সাথে আমার চুক্তি পত্র করা থাকবে, যারা আমার ব্যবসা থেকেই লাভ নিবে । এই ক্ষেত্রে আমি কি এমনটা করতে পারি ? নাকি আমাকে যৌথ মালিকানাধীন ব্যবসার জন্যেই আবেদন করতে হবে ?

উত্তরঃ

১) আপনি আপনার প্রতিষ্ঠান এর সকল কাজ বা কাগজ পত্র ফাইনালাইজ করে তবেই নিয়োগ দিন, এর আগে নয়।

২) জামানত নেয়াটা আসলে আইন সিদ্ধ না যদি না সেখানে কোন কমিটমেন্ট এর বিষয় থাকে, যেহেতু সে টাকার বিনিময়ে কাজ করবে আপনার প্রতিষ্ঠানে তাই জামানত না নেয়াই উত্তম। আর জামানত এর টাকা কোম্পাণীর এমপ্লয়ি ওয়েলফার ফান্ড করে সেখানে জমা রাখলেন তাতে আপনাকে কোণ ভাবে নিজের পকেট থেকে দেয়া লাগলো না যদি না আপনার কাজ গুলোতে রিস্ক ফ্যাক্টর থাকে যেখানে জামানত দিয়ে সেটা কভার করা হবে ইত্যাদি। তবে জামানত নেয়া উচিত হবে না একদমই এক কথায়। তাই এই টাকা বিনিয়োগ করা অন্য ভাবে চিন্তা করে নীতি এবং নৈতিকতার ব্যাপার টা কে সামনে নিয়ে আসে। আর যদি বিনিয়োগ করতেই চান তবে যাদের টাকা নিয়েছেন তাদের কে শেয়ার দেয়া লাগবে সেটা দিতে আপনি প্রস্তুত কিনা ! নচেত তা বেআইনী।

৩) একক মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান করে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ইনভেস্টমেন্টের জন্যে ফান্ড নিতে পারবেন সেই ক্ষেত্রে আপনি আপনার প্রতিষ্ঠান এর পক্ষে ঐ ব্যক্তি বিশেষ এর সাথে ১০০০/২০০০/২৫০০ টাকার স্ট্যাম্পে এগ্রিমেন্ট করে নিবেন এতে ঐ এগ্রিমেন্ট টা পাকা পোক্ত হলো ভালো করে প্লাস আইনগত ভাবে সবার সুরক্ষা নিশ্চিত হলো। অথবা ইনভেস্টমেন্ট শেয়ার দেয়া যেতে পারে তবে ঐ ব্যক্তি বিশেষ প্রতিষ্ঠান এর কোন ডিসিশন মেকিং এ ভুমিকা রাখতে পারবে না। এটা হচ্ছে মুলত আপনার প্রশ্নের উত্তর এর উপর রিপ্লাই।

আমার ব্যক্তিগত অভিমত হচ্ছে এইসব ক্ষেত্রে জবাবদিহীতা থাকা জরুরী তাই বড় অংকের এমাউন্ট হলে তা কোম্পাণী ফর্ম করে (লিমিটেড) তার মাধ্যম শেয়ার ইস্যু করলে বিনিয়োগকারীর বিনিয়োগ সু-নিশ্চিত হবে ভালো করে।

————————————————————————————————————————————————————–
চলবে… এই ডক টা সময় মতো আপডেট করা হবে। এবং কোন ব্যক্তি বিশেষ যদি অন্য কারোর কোন প্রশ্নের উত্তর দিতে চান তবে এই ডকে তা আপডেট করে দিতে পারবেন নিজের মন্তব্যের শেষ অংশে আপনার নাম টা জুড়ে দিবেন। এলোমেলো ভাবে না লিখে গুছিয়ে লেখাই কাম্য।

0