spot_imgspot_img

ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ সুবিধার্থে চালু হচ্ছে ‘ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কীম’

নভেল করোনা ভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাব থেকে বের হয়ে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড সচল করতে কুটির, মাইক্রো ক্ষুদ্র শিল্প উদ্যোক্তাদের সক্ষমতা ধরে রাখতে ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কীম চালুর কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।কুটির, মাইক্রো ক্ষুদ্র উদ্যোগ খাতে ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কীম’ নামের স্কিমে এই সুবিধা চালু করতে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে দ্রুত এই নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতেও বলা হয়েছে।

গত ২৭ জুলাই এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

নির্দেশনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, এসএমই উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ঋণ বা বিনিয়োগের বিপরীতে ক্রেডিট গ্যারান্টি সুবিধা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস্ ডিপার্টমেন্টের আওতায়ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম ইউনিটএর মাধ্যমে সুবিধা দেওয়া হবে। স্কিমে অংশগ্রহণকারী ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোই এই ক্রেডিট গ্যারান্টি সুবিধা পাবে। 

স্কিমটিতে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের জন্য বলা হয়েছে, 

১. নতুন ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম এর জন্য সরকার বাংলাদেশ ব্যাংক প্রয়োজনীয় তহবিলের সংস্থান করবে। তহবিলের পর্যাপ্ততার উপর ভিত্তি করে স্কিমে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেক ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের জন্য কুটির, মাইক্রো ক্ষুদ্র (এসএম্ই) খাতে চলতি মূলধন ঋণ বা বিনিয়োগের জন্য নির্ধারিত পোর্টফোলিও সীমার সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ পর্যন্ত পোর্টফোলিও গ্যারান্টি ক্যাপ দেওয়া হবে। উক্ত পোর্টফোলিও গ্যারান্টি ক্যাপের আওতায় কোনো একক উদ্যোক্তা ঋণ বা বিনিয়োগ গ্রহীতার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৮০ শতাংশ পর্যন্ত গ্যারান্টি কাভারেজ দেওয়া হবে। 

২. পোর্টফোলিও সীমার আওতায় গ্যারান্টি সুবিধা পাবে কুটির, মাইক্রো ক্ষুদ্র উদ্যোগের আওতায় ম্যানুফ্যাকচারিং সেবা খাতে সর্বোচ্চ ৭০ শতাংশ এবং কুটির, মাইক্রো ক্ষুদ্র উদ্যোগের আওতায় ব্যবসা খাতে সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ। 

৩. ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিমের আওতায় গ্যারান্টি সুবিধার জন্য আবেদন করা হবে তার আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ভিত্তিক শ্রেণীকৃত ঋণ ১০ শতাংশ বা তার কম ধরনের ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান নতুন এই স্কিমের জন্য যোগ্য বিবেচিত হবে। তবে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক বিশেষায়িত ব্যাংকের ঋণ বা নিয়োগ সুবিধার ক্ষেত্রে গ্যারান্টি সুবিধার জন্য বিধিনিষেধ প্রযোজ্য হবে না। 

৪. ঋণ বা বিনিয়োগের জন্য সীমা যাই থাকুক না কেন ক্রেডিট স্কিমের আওতায় গ্যারান্টির জন্য ঋণ বা বিনিয়োগ সুবিধার পরিমাণ হবে সর্বনিম্ন লাখ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা। 

৫. নতুন স্কিমের আওতায় প্রদেয় গ্যারান্টির মেয়াদ হবে প্রাথমিকভাবে এক বছর। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঋণ বা বিনিয়োগ সম্পূর্ণ আদায় হয়ে থাকলে সংশ্লিষ্ট ঋণ বা বিনিয়োগের গ্যারান্টির মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। তবে কোনো ঋণ বা বিনিয়োগের সুবিধা নবায়ন বা পুনঃতফসিল করা হলে নবায়নের সময়কে গ্যারান্টির মেয়াদ হিসেবে ধরা হবে। এক্ষেত্রে ঋণবিনিয়োগের মেয়াদ বৃদ্ধি এবং নবায়ন বা পুনঃতফসিলের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে সিজিএস ইউনিট থেকে গ্যারান্টির মেয়াদ বাড়িয়ে নিতে হবে। গ্যারান্টি রেজিস্ট্রেশনের আবেদনের সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান তাদের অনুমোদিত ঋণ নীতিমালার আওতায় গ্রাহকের ঋণ বা বিনিয়োগ আবেদন যথাযথভাবে যাচাইবাছাই করা হয়েছে মর্মে প্রত্যায়নপত্র দিতে হবে। 

৬. প্রতি মাসের প্রথম ১০ কার্যদিবসের মধ্যে গ্যারান্টি রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করতে হবে। গ্যারান্টি রেজিস্ট্রেশনের সময় পোর্টফোলিও সীমা যাতে অতিক্রম না করে তা সিজিএস ইউনিট নিশ্চিত করবে। সিজিএস ইউনিট হতে রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্তির পর সংশ্লিষ্ট ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান যথাযথ ডকুমেন্টেশন শেষ করে উদ্যোক্তার অনুকূলে ঋণ বা বিনিয়োগ সুবিধা মঞ্জুরীপূর্বক বিতরণ করবে।

Get in Touch

spot_imgspot_img

Related Articles

spot_img

Get in Touch

0FansLike
3,428FollowersFollow
0SubscribersSubscribe

Latest Posts