গ্রোথ হ্যাকিং মার্কেটিং – ই-মেইল কোর্স


উদ্যোক্তা ও মার্কেটারদের জন্য গ্রোথ হ্যাকিং বিষয়ক ই-মেইল কোর্সের উদ্যোগ নিয়েছে চাকরি খুঁজব না, চাকরি দেব প্ল্যাটফর্ম। এই কোর্সের বিস্তারিত নিচে দেওয়া হল

বিষয়বস্তু

হাল জমানায় পণ্য/সেবা বিপণনের একটি অন্যতম কৌশল হলো গ্রোথ হ্যাকিং মার্কেটিং। এই মার্কেটিং-এর সূচনা ১৯৯৬ সালে হটমেইলের হাতে হলেও সাম্প্রতিক কালে এই পদ্ধতি অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়েছে। এই বিপণনের মূল লক্ষ্য হল অন্যের খ্যাতি, ব্যপ্তি ও নেটওয়ার্ক তথা গ্রোথকে ‘হ্যাক’ করে নিজের পণ্যের প্রচার ও প্রসার।   এটি দুই তরফের অনুমোদনের মাধ্যমেও হতে পারে যেমনটি করে উবার তাদের কাস্টোমারদের স্যোসাল মিডিয়ায় রাইড শেয়ারিং-এর খবর প্রচারে উৎসাহ দিয়ে। অথবা অজান্তেও হতে পারে যেমনটি করেছে এয়ারবিএনবি। বাংলাদেশেও গ্রোথ হ্যাকিং মার্কেটিং-এর অনেক উদাহরণ তৈরি হয়েছে।

এই কোর্সটিতে গ্রোথ হ্যাকিং মার্কেটিং কী, কেন কীভাবে করতে হয় সেটিই শেয়ার করা হবে তবে কোন স্ট্রাকচার্ড পদ্ধতিতে নয়। এটিও করা হবে গ্রোথ হ্যাকিং পদ্ধতিতে!

মূল লক্ষ্য হচ্ছে যারা আগ্রহী তারা যেন নিজেদের পণ্য বা সেবা বিপণনের এই পদ্ধতি সম্পর্ক একটি ধারণা পায়।

কোর্সের পদ্ধতি

এখানে অংশগ্রহণকারীদের কাছে নিয়মিত ই-মেইল পাঠানো হবে। এই সব ই-মেইলের বডিতে কখনো কখনো কোন উদাহরণ থাকবে যেখানে কোন পদ্ধতির কথা বলা হবে, কখনো কোন লিঙ্ক রেফার করা হবে, কখনো কোন এক্সারসাইজ করতে দেওয়া হবে। কখনো কোন ভিডিও আপলোড করে সেটি দেখতে বলা হবে। এবং হয়তো ১ বা ২ বার অনলাইন মিটিং হতে পারে। কাজে এটি মোটেই কোন প্যাসিভ কোর্স নয়, সক্রিয়ভাবেই এতে অংশ নিতে হবে।

কাদের জন্য

উদ্যোক্তা ও মার্কেটারদের জন্য এই কোর্স। যাদের প্রোডাক্ট বা সেবা আছে এবং তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করেন তারাই মূলত এই কোর্সটি করতে পারবেন।

১. যার প্রোডাক্ট আছে, সেটি কিছুটা হলেও চলে,

২. ওয়েবসাইট আছে বা সহসা তৈরি করবেন

৩. ফেসবুক পেজ আছে এবং ফেসবুক মার্কেটিং-এ কিছু টাকা হলেও খরচ করেন

৪. নিয়মিত ই-মেইল চেক করেন

তবে, সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে নিচের অনুচ্ছেদটি দেখে নিন।

কাদের জন্য নয়

১. আপনি যদি মনে করেন এই কোর্স করে আপনার পণ্যের প্রচার ও প্রসার ১০০ গুণ বেড়ে যাবে,

২. সার্ভে/এক্সারসাইজে যা যা তথ্য চাওয়া হবে সেটি দেওয়ার সময় যদি আপনার মনে হয় আপনার ব্যবসা কপি করা হবে,

৩. আপনি যদি ফ্যাসিলিটেটরদের চেয়ে বেশি জানেন,

৪. অংশগ্রহণকারীরা সবাই সবার সম্পর্ক কমবেশি জানবে, ই-মেইল বিনিময় করবে। এতে যদি আপনার আপত্তি থাকে,

৪. যদি এই কোর্সে আপনার কোন কমিটমেন্ট না থাকে।

আসন(??) সংখ্যা
ই-মেইলে হলেও এই কোর্সে অনেককে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেওয়া যাবে না। কারণ অনেক এক্সারসাইজই হবে ওয়ান-টু-ওয়ান। সে হিসাবে অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা সীমিত রাখায় শ্রেয়।

কোর্স ফী –
এই কোর্সের ফী অংশগ্রহণকারী নিজে ঠিক করবেন। তবে, ন্যূনতম ফী – ১০০ টাকা।

নিবন্ধন করার পদ্ধতি

প্রথমে নিজেই কোর্স ফী ঠিক করুন এবং তারপর 01924016037 (মাচ্যান্ট একাউন্ট)এই নম্বরে কোর্স ফী বিকাশ করুন (রেফারেন্স – G, কাউন্টার – নিজের মোবাইল নম্বর), ট্যানজেকশন নম্বরটি নিন। তারপর নিবন্ধন ফরম পূরণ করুণ

নিবন্ধন ফরম

 

কোর্স সমন্বয়কারী


মুনির হাসান, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক

লেখক, গ্রোথ হ্যাকিং মার্কেটিং

 

 

 

 

 

 

 

 

0